জেলা - উত্তরবঙ্গ
পশ্চিমবঙ্গের ২০ তম জেলা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে আলিপুরদুয়ার। জলপাইগুড়ি ভেঙে আলিপুরদুয়ার গঠনের দাবি ছিল অনেকদিনের। সেই মোতাবেক মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়ে পৃথক জেলা গঠনের ঘোষণা করেছিলেন। অবশেষে ২০১৪ সালের ২৫ জুন আলিপুরদুয়ার গঠন করা হয়।
Published 28-Oct-2014 17:15 IST
উত্তরবঙ্গের জলপাইগুড়ি বিভাগের ৬ টি জেলার মধ্যে একটি হল কোচবিহার ৷ জেলার উত্তরে রয়েছে জলপাইগুড়ি জেলা, দক্ষিণে বাংলাদেশের রংপুর বিভাগ, পূর্বে অসম এবং পশ্চিমে বাংলাদেশের রংপুর বিভাগ ও জলপাইগুড়ি জেলা রয়েছে ৷ আয়তনের হিসাবে রাজ্যের ১৩ তম এবং জনসংখ্যার হিসেবে ১৬ তম স্থানে রয়েছে ষোলো নম্বরে রয়েছে কোচবিহার জেলা।
Published 03-Sep-2014 19:14 IST
তখনও দেশে ব্রিটিশ শাসন শুরু হয়নি ৷ তার আগে থেকেই বর্তমানের দার্জিলিং জেলা সিকিমের অধীনে ছিল ৷ পরে এটি ইংরেজদের হস্তগত হয় ৷ দার্জিলিং-এর পার্বত্য অঞ্চল ইংরেজদের হাতে আসে ১৮৩৫ সালের ১ ফেব্রুয়ারি ৷ ধীরে ধীরে এলাকায় ইংরেজ বসতি গড়ে ওঠে ৷ দার্জিলিং-এ বাণিজ্যিকভাবে চা চাষ শুরু হয় ১৮৫৬ সালে ৷ তখন ব্রিটিশদের অধীনে থাকা চা বাগানের মালিক পরিবারের ছেলেমেয়েদের পড়াশোনার জন্য সেখানে গড়ে তোলা হয় উন্নতমানের শিক্ষা ব্যবস্থা ৷ ইংরেজদের পাশাপাশি শুরু হয় বাঙালি বসতিও ৷ তবে সিকিমরাজ্যের সঙ্গে ইংরেজদের আবার বিরোধ বাধে ১৮৬০ সালে ৷...
Published 09-Sep-2014 22:00 IST | Updated 16:37 IST
উত্তরবঙ্গের ৭টি জেলার মধ্যে অন্যতম প্রধান হল জলপাইগুড়ি ৷ জেলার সীমান্তবর্তী হল বাংলাদেশ ও ভুটান ৷ এ ছাড়া জলপাইগুড়িকে ঘিরে রয়েছে দার্জিলিং, কোচবিহার ও নবগঠিত আলিপুরদুয়ার জেলা ৷ প্রাকৃতিক সম্পদে পরিপূর্ণ এই জেলাটি আগে কখনও অসম, কোচবিহার কখনও বা রংপুর জেলার অংশ ছিল ৷ তবে বর্তমান জেলাটির সূচনা হয় বৈকুণ্ঠপুরকে কেন্দ্র করে ৷ সপ্তদশ শতকে মোঘল আক্রমণে কোচবিহারের রাজশক্তি দুর্বল হয়ে পড়লে কোচবিহার থেকে পৃথক হয়ে যায় বৈকুণ্ঠপুর ৷ পরে এটি ইস্ট ইন্ডিয়া কম্পানি ও ইংরেজদের দখলে আসে ৷ তখনকার সেই বৈকুণ্ঠপুরই আজকের জলপাইগুড়ি ৷...
Published 28-Oct-2014 16:34 IST
মালদা জেলাকে দক্ষিণবঙ্গ থেকে পৃথক করেছে গঙ্গা নদী ৷ উত্তরবঙ্গের এই জেলার প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশ এবং প্রতিবেশী রাজ্য বিহার ৷ এ ছাড়া উত্তরে মালদাকে ঘিরে রয়েছে দুই দিনাজপুর জেলা ৷ মালদা প্রাচীন গৌড় ও বরেন্দ্রভূমির অংশ ৷ কথিত আছে প্রাচীন জনজাতি ‘মলদ’ থেকেই মালদা নামের উৎপত্তি ৷ আরও একটি মতে, ফরাসি শব্দ ‘মাল’-এর অর্থ সম্পদ এবং ‘দহ’ শব্দের অর্থ সাগর ৷ অর্থাৎ, সম্পদের সাগর বলতে এক সমৃদ্ধ অঞ্চলকে ইঙ্গিত করেই ওই অঞ্চলের নামকরণ মালদা ৷ প্রাচীন গৌড় গড়ে উঠেছিল মুর্শিদাবাদ, বীরভূম, বর্ধমান ও মালদা নিয়ে ৷ গৌড় নাম নিয়েও...
Published 03-Sep-2014 19:18 IST
১৯৪৭ সালে দেশ স্বাধীন হওয়ার সময় ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে ভাগ হয়ে যায় দিনাজপুর ৷ ভারতের অংশের নাম হয় পশ্চিম দিনাজপুর ৷ পরে ১৯৯২ সালের ১ এপ্রিল পশ্চিম দিনাজপুর ভেঙে উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা গঠিত হয় ৷ যা বর্তমানে জলপাইগুড়ি ডিভিশনের অন্তর্গত ৷
Published 31-Jul-2014 18:26 IST | Updated 16:45 IST
আজকের দক্ষিণ দিনাজপুর একসময় অবিভক্ত পশ্চিম দিনাজপুরের অংশ ছিল ৷ ১৯৯২ সালের ১ এপ্রিল পশ্চিম দিনাজপুরকে দুই ভাগে ভাগ করা হয় ৷ ওই জেলার দক্ষিণ অংশ নিয়েই দক্ষিণ দিনাজপুর ৷ এর উত্তর-পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব দিকে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশ ৷ পশ্চিমে উত্তর দিনাজপুর জেলা ও দক্ষিণ-পশ্চিমে মালদা জেলা অবস্থিত ৷
Published 01-Aug-2014 17:05 IST | Updated 16:47 IST